রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২:০১ অপরাহ্ন

ফল ও সবজি দীর্ঘদিন সতেজ রাখার কৌশল

আউটলুকবাংলা রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২০ নভেম্বর, ২০২২

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো থেকে শুরু করে শরীরে পুষ্টি জোগান দেওয়া— সবকিছুতেই ফল ও সবজি দারুণ কার্যকরী। পুষ্টিবিদদের মতে, প্রতিদিন ফল ও সবজি খাওয়া জরুরি। এতে শরীর তো বটেই, ভাল থাকে ত্বকও। ফল ও সবজির পুষ্টিগুণ শরীরের অনেক সমস্যার চটজলদি সমাধান করে। ওজন কমাতেও ফল ও সবজি নিঃসন্দেহে উপকারী। আধুনিক যুগে প্রতিদিন বাজার থেকে ফল বা সবজি ক্রয় করা কঠিন। বর্তমানে প্রায় প্রতিটি বাড়িতে ফ্রিজ থাকে। ফলে সবাই সপ্তাহের যেকোনো দিন নিজেদের সুবিধামত নিত্যপ্রয়োজনীয় খাবার একত্রে বাজার থেকে ক্রয় করে। তারপর সেগুলো ফ্রিজে রাখে। সংরক্ষণের সঠিক উপায় না জানায় এগুলো ধীরে ধীরে পচতে শুরু করে। অথচ ঘরোয়া কিছু উপায়ে খুব সহজেই ফল ও সবজি বেশিদিন তাজা রাখা যায়।

বাজার থেকে ফল বা সবজি কিনে আনার পর অনেকেই সেগুলো প্রথমে পানিতে ভিজিয়ে রাখেন। কারণ ফল বা সবিজ গায়ে অনেক ধুলোময়লা লেগে থাকে। সেগুলো ধুয়ে পরিষ্কার করা জরুরি। বিশেষ করে অতিমারির পর থেকে বাইরে থেকে আনা সব্জি, ফল ধুয়ে তোলার প্রবণতা রয়েছে। এই অভ্যাস বজায় রাখা ভাল। তবে ফল ও সবজি অনেক দিন পর্যন্ত ভাল রাখতে ফ্রিজে তোলার আগে ফল ও সবজিগুলো মুছে নিন। ভেজা অবস্থায় রেখে দিলে অল্প দিনেই পচে যেতে পারে।

যে কোনও ফল ও সবজি অনেক দিন পর্যন্ত সতেজ রাখতে বাজার থেকে কিনে আনার পর সেগুলো ধুয়ে, শুকিয়ে কাগজে মুড়িয়ে রাখতে পারেন। তা হলে বাইরের আবহাওয়ার সংস্পর্শে এসে ফল অল্পেতেই নষ্ট না হয়ে যেতে পারে। অনেকেই ফ্রিজে ফল ও সবজি রাখেন। সে ক্ষেত্রেও কাগজে মুড়িয়ে রাখলে সুফল পাবেন।

দীর্ঘদিন ধরে ফল সতেজ রাখার একটি সহজতম উপায় হল ভিনেগার। বাড়িতে ফল ও সবজি কিনে আনার পর অনেকেই ঠান্ডা পরিষ্কার পানিতে ধুয়ে নেন। তবে শুধু পানি দিয়ে না ধুয়ে তাতে মিশিয়ে নিন কিছুটা ভিনেগার এবং লবণ। ওই মিশ্রণটিতে ফলগুলো অন্তত ৮-১০ মিনিট ভিজিয়ে রেখে দিন। তার পর ফলগুলো ওই মিশ্রণটি থেকে তুলে ভাল করে মুছে ফ্রিজে বা অন্য কোথাও তুলে রাখুন। অনেক দিন পর্যন্ত ফল ভাল থাকবে।

অন্য ফলের চেয়ে আপেল ও কলাতে বেশি পরিমাণ ইথিলিন (এক ধরনের হরমোন যা বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ করে) থাকে। এ দুটো ফল এর আশেপাশে রাখা ফলগুলোকে দ্রুত পাকিয়ে ফেলতে পারে। ফলের ঝুড়ি থেকে আপেল ও কলাকে তাই আলাদা করে রাখুন।

আঙুর কিংবা স্ট্রবেরি ফ্রিজের বাইরে রাখলে স্বাদ ভালই থাকে। কিন্তু দিন কয়েক তাজা রাখতে হলে জানতে হবে একটি ফিকির। কখনও এই ফলগুলো ধুয়ে রাখবেন না। তা হলেই বাড়ে ছাতা পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা। এমনি রেখে দেবেন। খাওয়ার আগে ধুয়ে নেবেন।

কমলালেবু, মুসাম্বি রাখতে হবে শুকনো জায়গায়। খেয়াল রাখুন যেন সেই জায়গায় সরাসরি রোদ না পড়ে। তা হলেই তাজা থাকবে এই সব ফল।আলু আর পেঁয়াজ কখনও একসঙ্গে রাখবেন না, নইলে দুটোই তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যাবে। আলুর ঝুড়িতে ভরে খাট বা সোফার তলায় রাখুন। কোনও কোনও ফ্রিজে আলাদা করে আলু রাখার ক্রেট বা খাপ থাকে।

পেঁয়াজ ভাল থাকে কাগজের ব্যাগে। তবে পেঁয়াজ রাখার গায়ে অবশ্যই বেশ কয়েকটা ফুটো করে নেবেন। তাহলে স্বাভাবিক বাতাস চলাচল করবে ও পেঁয়াজ-রসুন বেশি দিন ভাল থাকবে।পেঁয়াজের মতোই রসুনেরক্ষেত্রেও একই নিয়ম। কাগজের ব্যাগে রেখে, কয়েকটা ছিদ্র করে দিন। খোলা জায়গায় রাখুন। ফলে ফ্রিজে না রাখলেও রসুন ভালো থাকবে।

টমেটো ফ্রিজে রাখলে দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। টমেটোকে একটা কাঠের ট্রেতে রাখুন। অবশ্যই বোঁটার দিকটা নীচের দিকে রেখে টোম্যাটো মজুদ করুন। অথবা বাইরের কোনও ঝুড়িতেও টমোটো রাখতে পারেন।কাঁচা মরিচ সাধারণত বাজার থেকে ক্রয় করার কিছুদিন পরেই নরম হয়ে যায়। একারণে বায়ুরুদ্ধ কোনো পাত্রে কাঁচা মরিচ রাখা উচিত। তারপর সেই পাত্রটি একটি নরম কাপড়ের ওপরে রেখে ‍দিবেন। এভাবে রাখলে মরিচ নষ্ট হয় না। ফ্রিজে রাখতে চাইলে পাত্রসহ রাখা উচিত। অ্যালুমিনিয়াম পাত্রে রাখলে আরও ভাল ফল পাওয়া যায়। এছাড়া চেন টানা ছোট ব্যাগগুলোতেও কাঁচা মরিচ রাখা যায়। এক্ষেত্রে মরিচের বোঁটা ছিঁড়ে ফেলা ভালো। তারপর ওই ব্যাগ ফ্রিজে রাখা ভালো।মাশরুম প্লাস্টিকের ব্যাগ ও বক্স থেকে আলাদা রাখুন। এসবের পরিবর্তে কাগজ এমনকি খবরে কাগজের উপর রাখা যেতে পারে। কাগজ আদ্রতা শুষে নেয় ও মাশরুমকে সজীব রাখে।

আরো

© All rights reserved © 2022-2023 outlookbangla

Developer Design Host BD