শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০২:৩৩ পূর্বাহ্ন




ত্বকেরও শ্বাস নেয়ার দরকার হয়

ত্বকেরও শ্বাস নেয়ার দরকার হয়

আউটলুকবাংলা রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৮ জানুয়ারী, ২০২৩ ৫:০৬ pm
Skin Care human skin ত্বক নরম আবরণ দেহ লোম স্কিন মুখ ফেস
file pic

শ্বাস নিতে না পারলে ত্বকে নানান সমস্যা দেখা দেয়। আর শীতের সময় ত্বকে নানান ধরনের প্রসাধনী ব্যবহার করা হয়। পাশাপাশি মেইকআপ তো আছেই। তবে এসব প্রসাধনী ব্যবহার ত্বকের লোমকূপ আটকে নানান সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে।

ভারতের চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. ডিম্পল এইচ দোদা টাইমসঅবইন্ডিয়ায়’তে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলেন, “নিয়মিত ত্বক উপযোগী প্রসাধনী ব্যবহার উপকারী। তবে মাঝে মধ্যে ত্বককে শ্বাস নিতে দেওয়া আরও বেশি প্রয়োজন।”

ত্বককে শ্বাস নিতে দেওয়ার অর্থ কী

ডা. ডিম্পল বলেন, “ত্বক পরিষ্কার রাখা মানেই একে শ্বাস নিতে দেওয়া নয়। রক্তের অক্সিজেন ত্বকে পুষ্টি যোগায়। লোমকূপে প্রসাধনী আবদ্ধ হতে না দেওয়ার অর্থ ত্বককে শ্বাস নিতে দেওয়া।” শ্বাস নিতে না দিলে তা ত্বকের ক্ষতি হয়। ব্রণ, তেল চিটচিটেভাব, শুষ্কতা এমনকি বলিরেখাও দেখা দিতে পারে এর ফলে।

যে কারণে ত্বকের শ্বাস নেওয়া জরুরি

ত্বকের লোমকূপ যত কম আবদ্ধ থাকবে, ব্যবহৃত প্রসাধনী তত বেশি শোষণ করবে। আর ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে।

এতে ত্বকের পিএইচয়ের স্বাভাবিক মাত্রা বজায় থাকে। যে কারণে অতিরিক্ত শুষ্কতা ও তৈলাক্ততার সমস্যা দেখা দেয় না।

মেইকআপ ব্যবহারের কারণে হওয়া ত্বকের ক্ষতি বা অস্বস্তি সমাধানে ত্বককে কিছুটা সময় দিতে হয়।

মেইকআপের বিভিন্ন ব্রান্ড ব্যবহারের ওপরেও ত্বকের বিষাক্ততার মাত্রা নির্ভর করে।

ত্বককে শ্বাস নিতে দেওয়ার উপায়

আর্দ্রতা: ঝকঝকে ত্বকের জন্য আর্দ্রতা রক্ষা করা গুরুত্বপূর্ণ। নানানভাবে ত্বক আর্দ্র রাখা যায় যেমন- পানি পান ও ময়েশ্চারাইজার। ত্বক আর্দ্র রাখা শ্বাস নিতে সহায়তা করে। কারণ পানি পানে দেহে অক্সিজেনের মাত্রা বাড়ে। ত্বকের উপরিভাগের পাশাপাশি দেহের প্রতিটি কোষে অক্সিজেনের সরবারহ নিশ্চিত করা প্রচুর পানি পানের ওপরে নির্ভর করে।

মেইকআপ ছাড়া থাকা

পরিষ্কার ত্বকের অন্যতম শর্ত একে শ্বাস নিতে দেওয়া। তাই সপ্তাহে অন্তত একদিন মুখে কোনো রকম মেইকআপ এমনকি ক্রিম ব্যবহার না করা উচিত। এতে ত্বকে ভালো মতো শ্বাস নিতে পারবে এবং লোমকূপ উন্মুক্ত থাকবে। যাদের ত্বক সংবেদনশীল এবং ব্রণ ও ব্রেকাউট প্রবণ তাদের রাসায়নিক উপাদান ও মেইকআপ থেকে বিরত থাকার ফলে লোমকূপ আবদ্ধ হওয়া, ব্রণ হওয়া ইত্যাদি সমস্যা কমাতে সহায়তা করে। সচরাচর মেইকআপ ব্যবহার না করলে ত্বক ভালো থাকে। নিয়মিত মেইকআপ করলে ত্বক বার বার পরিষ্কার করার পরেও এর অবশিষ্টাংশ লোমকূপে আটকে গিয়ে নানান রকম ত্বকের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

পরিষ্কার করা: পরিষ্কার ত্বক পেতে ভালো মতো ধোয়ার নিয়ম জানতে হবে। ত্বকের দীর্ঘমেয়াদী স্বাস্থ্য, টানটানভাব এবং ধরন ইত্যাদি ভেবে এর যত্ন নিতে হবে। মানে হল মেইকআপ ও অন্যান্য প্রসাধনী নিয়মিত ব্যবহার ত্বকের উজ্জ্বলতা ও সুস্বাস্থ্য রক্ষায় বাধা সৃষ্টি করতে পারে। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এবং সকালে ঘুম থেকে উঠে ভালো মতো ত্বক পরিষ্কার করতে হবে। ব্যায়াম করার পরেও ত্বক পরিষ্কার করা জরুরি। অন্যথায়, ঘাম ও জীবাণু লোমকুপে জমাট বেঁধে ত্বকের জটিলতা সৃষ্টি করতে পারে।

এক্সফলিয়েট: পরিষ্কার, সুস্থ ও শ্বাস নিতে পারে এমন ত্বকের জন্য এক্সফলিয়েশন জরুরি। প্রতি রাতে মুখ ধোয়া হলেও লোমকূপে তেল, ময়লা, মেইকআপের বাড়তি অংশ ইত্যাদি রয়ে যায়। ফলে ত্বক শ্বাস নিতে পারে না। তাই সপ্তাহে অন্তত একবার ত্বক ভালো মতো পরিষ্কার করতে এক্সফলিয়েট করা প্রয়োজন।

ত্বক শ্বাস নিতে পারলে অযাচিত কোনো জটিলতা দেখা দেয় না। ফলে ত্বকে তারুণ্যভাব বজায় থাকে। এছাড়াও সুন্দর ত্বকের জন্য পর্যাপ্ত পুষ্টির চাহিদা নিশ্চিত করা, সুষম খাবার খাওয়া, আর্দ্র থাকা ও প্রাকৃতিক ভিটামিন সম্পূরক গ্রহণ করা জরুরি।




আরো






© All rights reserved © outlookbangla

Developer Design Host BD