শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০২:৪৫ পূর্বাহ্ন




লক্ষ্মীপুরে স্বামীকে শিকল দিয়ে বেঁধে স্ত্রীকে ধর্ষণ

আউটলুকবাংলা রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১০ মার্চ, ২০২৩ ৬:৪৪ am
female Women Homosexuality sexual sex Rape eye chok couple husband wife woman female partner marriage divorce widow spouse bride married relationship groom bridegroom ধর্ষণ রেপ যৌন নিগ্রহ নির্যাতন সমলিঙ্গ পুরুষ নারী উভকামী রুপান্তরিত লিঙ্গ সমকামিতা চোখ কপাল মহিলা মেয়ে মানুষ নারী সুন্দরী স্মার্ট আবেদনময়ী শিশু বিয়ে-শাদী বিয়ে শাদী নিকাহ তালাক নিবন্ধন রেজিস্ট্রার কাজী লাইসেন্স মুসলিম বিবাহ মুসলিম ম্যারেজেস অ্যান্ড ডিভোর্সেস রেজিস্ট্রেশন বর মহিলা বউ স্বামী স্ত্রী স্বামী-স্ত্রী দাম্পত্য দম্পতি H-W বিয়ে
file pic

লক্ষ্মীপুরে ইটভাটায় স্বামীকে শিকল দিয়ে বেঁধে নির্যাতন ও স্ত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণকারীরা ওই নারীর ডান হাতে সিগারেটের ছ্যাঁকা দিয়েছে। গতকাল বিকালে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল করে ভুক্তভোগী নারী এ অভিযোগ করেন। বিকালে তিনি সদর মডেল থানায় উপস্থিত হয়ে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসলেহ উদ্দিনকে ঘটনাটি জানিয়েছেন।

এদিকে ৯৯৯-এ কল পেয়ে সদর থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল সদর উপজেলার চররমনী মোহন ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর চররমনী গ্রামের বনফুল ব্রিক্স অ্যান্ড কোম্পানিতে (বিবিসি) অভিযান চালায়।

নির্যাতিত স্বামী ভোলা জেলার বাসিন্দা ও তার স্ত্রী বাগেরহাট জেলার মেয়ে। তাদের সংসারে আড়াই বছরের একটি শিশু সন্তান রয়েছে। তারা চট্টগ্রাম আজিমপাড়ায় ছিলেন। প্রায় ৩ মাস আগে ইটভাটাতে শ্রমিক হিসেবে কাজের উদ্দেশ্যে তারা লক্ষ্মীপুরের উত্তর চররমনী গ্রামের বিবিসি ইটভাটাতে আসে। ইটভাটার পাশেই তারা একটি ঘরভাড়া নিয়ে বসবাস করতেন।
নির্যাতিতা নারী জানান তার স্বামী চট্টগ্রামে আজিমপাড়া এলাকায় দিনমজুর হিসেবে কাজ করতেন। দূর সম্পর্কের একজনের সঙ্গে ৩ মাস আগে তিনি লক্ষ্মীপুরে ইটভাটায় কাজ করতে আসেন।

কিন্তু ৩ দিন আগে যার মাধ্যমে কাজে আসেন ওই লোক পালিয়ে যায়। মঙ্গলবার ইটভাটায় আসলে জামাল মাঝি, নিজাম মাঝি ও দিনাজ তার কাছে ওই লোকটির সন্ধান চায়। এতে ব্যর্থ হওয়ায় তারা তার স্বামীকে শিকল দিয়ে বেঁধে রাখে। দীর্ঘসময় ধরে ঘরে না ফেরায় স্বামীকে খুঁজতে ইটভাটায় যান তিনি। এরপর তার স্বামীর কাছে টাকা পাবে বলে জানায় ইটভাটা কর্তৃপক্ষ। টাকা পেলেই তাকে ছেড়ে দেয়া হবে বলে জানায়।

এ ছাড়া টাকা না দিতে পারলে তাদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করার জন্য কুপ্রস্তাব দেয়া হয়। পরে তিনি বাসায় চলে যান। এরপর গভীর রাতে জামাল মাঝি, নিজাম মাঝি ও দিনাজ ঘরে ঢুকে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে। এরপর আরও ৬ জন গিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে তারাই তার ডান হাতে সিগারেটের আগুন লাগিয়ে ছ্যাকা দেয়।

নির্যাতিতা নারী বলেন, আমরা অগ্রীম কোনো টাকা নিইনি। তবুও তারা আমার স্বামীকে বেঁধে রেখে নির্যাতন করেছে। আমি ছাড়াতে গেলে তারা আমাকে ধর্ষণ করে। নিরুপায় হয়ে ৯৯৯-এ কল দিয়ে ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় ঘটনাটি পুলিশকে জানাই। তারা ঘটনাস্থল পৌঁছে আমার স্বামীকে বাঁধা অবস্থায় পেয়েছে।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসলেহ উদ্দিন বলেন, ভুক্তভোগী নারীর কাছ থেকে ঘটনাটি শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।




আরো






© All rights reserved © outlookbangla

Developer Design Host BD