বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:০৮ পূর্বাহ্ন




দেশের সব বিমানবন্দরে অগ্নিসতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে চিঠি

আউটলুকবাংলা রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৩ ১১:১০ am
টার্মিনাল HSIA CAAB hazrat shahjalal international airport dhaka biman হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বিমানঘাঁটি Hazrat Shahjalal International Airport বিমানবন্দর বিমান বন্দর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বিমানঘাঁটি Hazrat Shahjalal International Airport বিমানবন্দর বিমান বন্দর Hazrat Shahjalal International Airport Flight International biman bangladesh airline বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এয়ার লাইন্স শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বিমান বন্দর এয়ারলাইনস এয়ার লাইনস ফ্লাইট
file pic

অগ্নিঝুঁকি মোকাবিলায় ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরসহ দেশের সব বিমানবন্দরে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে।

সম্প্রতি (রোববার) বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষকে (বেবিচক) সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে একটি চিঠি দিয়েছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

বেবিচক চেয়ারম্যানকে উদ্দেশ করে চিঠিটি পাঠান ঢাকা কাস্টমসের কমিশনার একেএম নরুল হুদা আজাদ।

চিঠিতে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিককালে বিভিন্ন ভবন, মার্কেট ও স্থাপনায় আশঙ্কাজনকভাবে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা বেড়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের সতর্কবার্তা, তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ায় অগ্নিকাণ্ডের ঝুঁকি আরো বেড়ে গিয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের সতর্কবার্তা, তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে এ জাতীয় ঝুঁকি অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। কাস্টম হাউস, ঢাকার আওতাধীন বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের অধীনে বিমানবন্দর, এয়ারফ্রেইট, কুরিয়ার ইউনিট, আমদানি ও রপ্তানি কার্গো ভিলেজের বিভিন্ন গুদামে রাজস্ব আদায়যোগ্য ও মূল্যবান পণ্যসামগ্রী সংরক্ষিত আছে। এছাড়া জীবন রক্ষাকারী ওষুধ, রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ পণ্য, শিল্পের কাঁচামালসহ বিভিন্ন ধরনের রাসায়নিক পদার্থ সংরক্ষিত রয়েছে। ফলে, সিভিল এভিয়েশন অথরিটির নিয়ন্ত্রণাধীন কাস্টম হাউস, ঢাকার ওয়্যারহাউসগুলোতে অগ্নিঝুঁকির মাত্রা অনেক বেশি এবং এতে সরকারি রাজস্বও ঝুঁকির সম্মুখীন।

এতে আরও বলা হয়, এমতাবস্থায় অগ্নি দুর্ঘটনার কবল হতে কার্গো কমপ্লেক্স, কার্গো ভিলেজসহ সার্বিক এলাকার নিরাপত্তার স্বার্থে অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা জোরদার ও সুনিশ্চিত করার জন্য আপনাকে অনুরোধ করা হলো। রাজস্ব সুরক্ষা ও নিরাপত্তার স্বার্থে আপনার দপ্তরের সহযোগিতা একান্ত কাম্য।

এর আগে গত ১৫ এপ্রিল (শনিবার) নিউ মার্কেট এলাকার ঢাকা নিউ সুপার মার্কেটে আগুন লাগে। এ বিপণিবিতানের তৃতীয় তলায় ভোরে আগুনের সূত্রপাত হয়। ফায়ার সার্ভিসের ৩০টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে। ভয়াবহ আগুনে ঢাকা নিউ সুপার মার্কেটের তৃতীয় তলায় কমপক্ষে ২৫০টি দোকান পুড়ে গেছে। বেশির ভাগই কাপড়ের দোকান। অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতির পরিমাণ ২৫০ কোটি টাকার মতো হবে বলে প্রাথমিকভাবে দাবি করেছেন ব্যবসায়ীরা। অগ্নিকাণ্ডে কেউ মারা না গেলেও আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের ২৪ কর্মীসহ ৩২ জন আহত হয়েছেন।

এই ঘটনার ঠিক ১১ দিন আগে ৪ এপ্রিল আগুন লাগে বঙ্গবাজারসহ আশপাশের কয়েকটি মার্কেটে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, অগ্নিকাণ্ডে বঙ্গবাজারের ২ হাজার ৯৬১টি দোকান পুড়ে গেছে। এছাড়া মহানগর মার্কেটের ৭৯১টি, বঙ্গ ইসলামিয়া মার্কেটের ৫৯টি এবং বঙ্গ হোমিও কমপ্লেক্সের ৩৪টি দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সব মিলিয়ে ক্ষতির পরিমাণ ৩০৩ কোটি টাকা।




আরো






© All rights reserved © outlookbangla

Developer Design Host BD